স্মিথকে ওপেনিংয়ে পাঠিয়ে ব্যাটিং অর্ডার এলোমেলো করতে চান না কামিন্স

স্টিভ স্মিথই আলোচনার পালে হাওয়া তুলেছিলেন। বলেছিলেন, ডেভিড ওয়ার্নারের জায়গায় অস্ট্রেলিয়ার হয়ে টেস্টে ওপেন করতে আগ্রহী তিনি। তবে স্মিথের এমন আগ্রহের পর তাঁকে ব্যাটিংক্রমের ওপরে তোলার বিষয়ে অধিনায়ক প্যাট কামিন্সকে খুব বেশি আগ্রহী মনে হলো না। সিডনি টেস্ট শেষে কামিন্স জানিয়েছেন, ৪ নম্বরে স্মিথের বর্তমান ভূমিকাতেই তিনি সন্তুষ্ট।

টেস্ট ক্রিকেটকে আজ বিদায় বলেছেন ডেভিড ওয়ার্নার। গত বছরই জানিয়েছিলেন, পাকিস্তানের বিপক্ষে সিডনি টেস্ট শেষেই তিনি সাদা পোশাকের ক্রিকেটকে বিদায় বলবেন।

ওয়ার্নারের জায়গায় কে হতে পারেন অস্ট্রেলিয়ার পরবর্তী ওপেনার, সেটা নিয়ে আলোচনা সেই থেকেই। এ আলোচনায় শুরুর দিকে শোনা গেছে মিচেল মার্শ, ক্যামেরন গ্রিন, মার্কাস হ্যারিস, ক্যামেরন ব্যানক্রফট, ম্যাথু রেনশর নাম, আর স্মিথের নাম ছিল এখানে নতুন সংযোজন।

যে কয়টা নাম ঘুরেফিরে আসছে, তার মধ্যে হ্যারিস, ব্যানক্রফট, রেনশ প্রথাগত ওপেনার। গ্রিন, মার্শ ও স্মিথ মূলত মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। তাঁদের ওপরে আনার কথা ভাবা হচ্ছে দলের সমন্বয়ের কথা ভেবে। কারণ, তাঁদের কেউ ওপেনিংয়ে এলে দলের বোলিং বিকল্প বেড়ে যাবে। যেটা  হ্যারিস, ব্যানক্রফট, রেনশ ওপেন করলে হবে না

কামিন্স অবশ্য ব্যাটিং অর্ডার এলোমেলো করার বিপক্ষে। তিনি বলেছেন, ‘৪ নম্বরে স্মিথের পারফরম্যান্সে আমি খুবই খুশি। অবশ্যই মারনাস (লাবুশেন), স্মাজ (স্মিথ), ট্রাভ (হেড) এবং মিচেল (মার্শ) ৩, ৪, ৫ ও ৬–এ দুর্দান্ত। তাই আমার প্রাথমিক ভাবনা হচ্ছে সম্ভবত ব্যাটিং অর্ডারকে এলোমেলো না করা

স্মিথ ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বেশি ৪ নম্বরেই ব্যাটিং করেছেন। ৪ নম্বরে ১১১ ইনিংসে তাঁর সেঞ্চুরি ১৯টি, গড় ৬১.৪৬। এমন সংখ্যায় যেকোনো অধিনায়কেরই খুশি হওয়ার কথা।
এর আগে স্মিথ তৃতীয় দিনের খেলা শেষে এবিসি রেডিওকে এই প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘আসলে আমিও ওপরে যেতে পারলে খুশিই হব। আমি খুবই আগ্রহী, এটাই যদি তারা করতে চায়। আমি নিশ্চিত, নির্বাচকেরা ও রন (অ্যান্ড্রু ম্যাকডোনাল্ড) এবং প্যাটি (কামিন্স) এই ম্যাচের পর এই প্রসঙ্গে আলোচনা করবে। তবে হ্যাঁ, আমি নিশ্চিতভাবেই আগ্রহী।’

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top