ঢাকাই সিনেমা ২০২৩: সংখ্যা বেড়েছে, ব্যবসা বাড়েনি

চলতি বছর মুক্তি পেয়েছে মোট ৫০টির বেশি সিনেমা। এর মধ্যে ব্যবসাসফল হয়েছে হাতে গোনা কয়েকটি। এর বাইরে মাল্টিপ্লেক্সে হলিউডের ছবির পাশাপাশি এ বছর আমদানি করা সিনেমা ‘পাঠান’, ‘জওয়ান’, ‘টাইগার থ্রি’, ‘অ্যানিম্যাল’, ‘ডানকি’ ও ‘মানুষ’ মুক্তি পায়। গত বছর চলচ্চিত্রের জন্য সামগ্রিকভাবে ভালো ছিল না। কিন্তু ২০২৩ সালে যেমন সিনেমা মুক্তির সংখ্যা বেড়েছে, তেমনি বেড়েছে ব্যবসাসফল ও আলোচিত সিনেমার সংখ্যাও।

ঈদুল আজহায় মুক্তি পাওয়া শাকিব খান অভিনীত ও হিমেল আশরাফ পরিচালিত ‘প্রিয়তমা’ ঘিরে ব্যাপক আগ্রহ দেখা যায়। শুধু দেশে নয়; দেশের বাইরেও সিনেমাটি ব্যবসার দিক থেকে একের পর এক রেকর্ড গড়েছে সিনেমাটি। পরিবেশক সংস্থা স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো জানায়, ব্যবসার নিরিখে উত্তর আমেরিকায় বছরের সেরা বাংলাদেশি সিনেমা ‘প্রিয়তমা’। সিনেমাটির আয় করে ১ লাখ ডলারের বেশি। ঈদে মুক্তি পাওয়া রায়হান রাফীর সুড়ঙ্গও ব্যাপক আলোচনায় ছিল। তবে বছরের প্রথম ছয় মাসের তুলনায় পরের ছয় মাসে ছবি মুক্তির সংখ্যা কমে আসে। বছরের শেষে রাজনৈতিক অস্থিরতা যার বড় কারণ।

প্রথম ছয় মাসে ৩৩টি সিনেমা মুক্তি পেলেও পরের ছয় মাসে পায় মাত্র ১৭টি। তবে এই শেষ ভাগে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাগুলোর একটিও হল থেকে মুনাফা তুলে আনতে পারেনি। শেষ ছয় মাসের ছবিগুলোর ব্যবসায়িক হালহকিকত জানতে যোগাযোগ করা হলে স্টার সিনেপ্লেক্সের মিডিয়া ও মার্কেটিং বিভাগের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘ঈদে “প্রিয়তমা” ও “সুড়ঙ্গ” প্রদর্শন করে যতটা দর্শক পেয়েছি, সে তুলনায় ঈদের পরের বাংলা ছবিগুলো এর ধারেকাছেও যেতে পারেনি। বলতে গেলে বছরের দ্বিতীয়ার্ধে মুক্তি পাওয়া কোনো সিনেমাই দর্শক টানতে পারেনি। তবে ১৯৭১ সেইসব দিন ছবিতে দর্শক কিছুটা পেয়েছি। “এমআর-৯” ও “অন্তর্জাল” নিয়ে বড় প্রত্যাশা ছিল। প্রত্যাশার ধারেকাছেও দর্শক টানতে পারেনি ছবিগুলো।’

ব্যক্তিগত জীবনের একাধিক বিতর্কে টালমাটাল ছিলেন ঢাকাই সিনেমার অন্যতম এই শীর্ষ তারকা। তবে চলতি বছর দুই সিনেমা দিয়ে আবার প্রবল দাপটে ফিরেছেন তিনি। বছরের শুরুতে মুক্তি পায় ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’ ছবিটি। তপু খানের এই ছবিটি শাকিব খানকে অন্যভাবে সবার সামনে উপস্থাপন করে। আর ‘প্রিয়তমা’ দিয়ে তো রীতিমতো চমকে দেন। এই ছবিতে শাকিবের বৃদ্ধ লুকের পোস্টার ভাইরাল হয়। ছবির গান ছিল মানুষের মুখে মুখে। ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জানায়, এটি বাংলাদেশি ছবির পুরোনো সব ব্যবসায়িক রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। এ সিনেমার সাফল্যের পর এরপর একের পর এক ছবিতে শাকিবের চুক্তিবদ্ধ হওয়ার খবর আসতে থাকে। এর মধ্যে আছে অনন্য মামুনের ‘দরদ’, হিমেল আশরাফের ‘রাজকুমার’। এ ছাড়া চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন রাফী তুফান ও মেহেদী হাসান হৃদয়ের নাম চূড়ান্ত না হওয়া ছবিতে। আগামী বছর এ চার ছবি মুক্তি পাবে।

The post ঢাকাই সিনেমা ২০২৩: সংখ্যা বেড়েছে, ব্যবসা বাড়েনি appeared first on Insurance.

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top